শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৭:৪৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
স্ব-রাষ্ট্র মন্ত্রী ও আইনী সহায়তা কেন্দ্র আসক ফাউন্ডেশনের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধিদের বৈঠক হিলিতেসব ধরনের মসলার দাম বেড়েছে। ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আবারও আ’গু’ন! হিলিতে চারদিনে কাঁচা মরিচ কেজিতে ৮০ টাকা বেড়েছে পলাশবাড়ীতে নির্বাচনী আচরণ ল’ঙ্ঘ’নে’র দা’য়ে চেয়ারম্যানের স্ত্রী ফুটবল মার্কার প্রার্থীর জ’রি’মা’না হাতীবান্ধায় ৪১০ বোতল ফে’ন’সি’ডি’ল সহ আ’ট’ক ১ গোবিন্দগঞ্জে অ’প’হ’র’ণে’র পর ধ’র্ষ’ণ, ধ’র্ষ’ক আ’ট’ক মোরেলগঞ্জে ভ’য়া’ব’হ অ’গ্নি’কা’ণ্ডে ১২টি দোকান পু’ড়ে ছা’ই, কোটি টাকার ক্ষ’তি ব্যবসায়ীদের দূর্জকে প্রচারণা বন্ধের নির্দেশ নির্বাচন কমিশন। উপজেলা প্রেসক্লাব উখিয়া’র ৪ পদে উপ নির্বাচন সম্পন্ন রাজশাহীতে দীর্ঘদিন দখলে থাকা তিনটি খাস পুকুর উন্মুক্ত রাজশাহীতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ শীর্ষক আলোচনা সভা রাজশাহীর ডিবি পুলিশ কর্তৃক ১০০ গ্রাম হে’রো’ইন, ২০ বোতল ফে’ন্সি’ডি’ল ও ২০০ পিছ ই’য়া’বা-সহ গ্রে’ফ’তা’র: ১ নাগেশ্বরীতে এবার ধানের বাম্পার ফলন ডিমলায় আ’গু’নে পুড়ে বসতঘর ছাই, ক্ষয়ক্ষ’তি ২০ লাখ। শ্রীপুরে এসএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়ে নিখোঁজের একদিন পর হাসপাতাল থেকে ম’র’দে’হ উ’দ্ধা’র উত্তরায় ড্রাইভওয়ে অবমুক্ত করে ট্রাফিক উত্তরা পশ্চিম জোন স্কুল ড্রেস না পড়ায় শিক্ষার্থীকে বে’ধ’ড়’ক মা’র’ধ’রের অ’ভি’যো’গ প্রধান শিক্ষকের বি’রু’দ্ধে এমভি আব্দুল্লাহর নাবিকরা স্বজনদের কাছে ফিরছেন আজ আবারও ফিরে এলো তাপপ্রবাহ, থাকতে পারে ১৮ মে পর্যন্ত

হারিয়ে যাওয়া পথশিশু রমজানকে উদ্ধার করে মানবতার বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন আর এন বি সিপাহি আনন্দ বড়ুয়া.

Views: 0

 

হারিয়ে যাওয়া পথশিশু রমজানকে উদ্ধার করে মানবতার বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন আর এন বি সিপাহি আনন্দ বড়ুয়া.

স্টাফ রিপোর্টার ঃ নাজমুল ইসলাম

অসহায় পথশিশু রমজান, গায়ের রং ফর্সা বয়স মাত্র সাড়ে তিন বছর। বাবা মা দুজনের নামই অজানা। রমজানের মা সে একজন বাক প্রতিবন্ধী বাবা চলে গিয়েছে ওর জন্মের পরপরই। শিশুটি জন্মের পর থেকে চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে বেড়ে উঠছে গতকাল বিকেল তিনটা থেকে নিখোঁজ। আর এন বি সিপাহি আনন্দ বড়ুয়ার এই ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে হারিয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা পেয়েছে পথশিশু রমজান। গত ১৫/০৩/২০২০ চাঁদপুর গামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে সে ভিক্ষা করতে করতে উঠে যায় এবং ট্রেন ছেড়ে দেয়ার কারণে সে আর নামতে পারে নি৷ সন্ধ্যার সময় জানাজানি হয় রমজান ছেলেটি হারিয়ে গিয়েছে কিন্তু কেউই বলতে পারছে না সে কিভাবে হারিয়েছে? বিষয়টি নজরে আসে রেওলয়ে নিরাপত্তা বাহিনী সিপাহি আনন্দ বড়ুয়ার। তিনি পুরো বিষয়টি জেনে খুব মর্মাহত হোন৷ রমজানকে তিনি চট্টগ্রাম রেলওয়ে স্টেশনে চাকুরী করার সুবাদে চিনতেন । প্রায় প্রতিদিনই তাকে আদর যত্নও খাবার বিতরণ করতেন। রমজানের হারিয়ে যাওয়ার খবর তার কাছে নিজ সন্তান হারানোর মত ছিল। স্টেশনে মাস্টারের সহায়তায় সিসি টিভি ফুটেজ চেক করে তিনি জানতে পারেন সে মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনে উঠে গিয়েছিল। এই ছোট্ট শিশু কোন স্টেশনে নামতে পারে তা ছিল সবার অজানা। প্রায় প্রতিটি স্টেশনে রমজানের খোঁজ নেয়া হয় সকল সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে।সামাজিক সংগঠন আলোর আশা যুব ফাউন্ডেশন রমজানকে একই ভাবে খোঁজ করে আলোর আশা যুব ফাউন্ডেশনের প্রতিটি সদস্যবৃন্দ। আজ মুজিব শতবর্ষ ও জাতীয় শিশুদিবস ছিল। এই শিশুদিবসে হারিয়ে যাওয়া রমজানকে ফিরে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী ও আলোর আশার যুব সদস্যরা আনন্দ উল্যাস করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর প্রধান পরিদর্শক মোহাম্মদ আমান উল্লাহ আমান, সহকারী উপ পরিদর্শক মোহাম্মদ শওকত হোসেন ও রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সকল সদস্যবৃন্দ। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন আলোর আশা যুব ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী মুহাম্মদ আনোয়ার এলাহি ফয়সাল, প্রাইমারি চিকিৎসক সোসাইটির চেয়ারম্যান মুহাম্মদ মাহবুবুল আলম সহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ। এসময় রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর প্রধান পরিদর্শক মোহাম্মদ আমান উল্লাহ আমান বলেন, বাংলাদেশ রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী রেলওয়ে জনগণের সেবায় সর্বদা নিয়োজিত থাকে।পথশিশু রমজানকে উদ্ধার করার জন্য আর এন বি সিপাহি আনন্দ বড়ুয়া সহ অন্যান্যরা যে পরিশ্রম করেছে তা মুজিববর্ষের প্রথম দিনে আমাদের জন্য অনেক বড় দৃষ্টান্ত। মুজিব বর্ষে নয় শুধু সারা বছর ব্যাপী এরকম ভালো কাজ করা উচিৎ আমাদের সকলের৷ সামাজিক সংগঠন আলোর আশা যুব ফাউন্ডেশন যে ভালো কাজগুলো করে রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী তাদেরকে সব সময় সহযোগিতা করেছে ভবিষ্যতেও করবে। যেন এই মুজিববর্ষ থেকে পথশিশু সংখ্যা হ্রাস পায়, প্রতিটি শিশু যেন নিরাপদ থাকে ও হারিয়ে যাওয়া থেকে রক্ষা পায় তার চেষ্টা করতে হবে আমাদের সকলকে। আন্দন্দ বড়ুয়া বলেন,রমজানকে ফিরে পাওয়া আমার কাছে অনেক আনন্দের ছিল। প্রতিটি শিশু যেন তার অধিকার যথাযথ পায় আমাদের কে সেই লক্ষ্যে কাজ করতে হবে৷ রমজান পথশিশু হিসাবে সে রাষ্ট্রের শিশু, তাই তাকে খুঁজে বের করা আমার নৈতিক দায়িত্ব ছিল অন্যান্য দায়িত্বের মতই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিবেকের তাড়নায় পোস্ট করি তাতেই খুব সহজে পেয়ে যায় রমজানকে। এরপর রমজানকে আলোর আশা যুব ফাউন্ডেশনের সদস্যদের নিকট হস্তান্তর করা হয় যেন এই শিশুটি পড়াশুনা ও অন্যান্য মৌলিক অধিকার পায়। আলোর আশার সদস্যরা বলেন তারা রমজানকে সব সময় দেখাশুনা করবে এবং রমজানের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হবে সে যেন শতভাগ অধিকার পায় যেহতু সে একজন বাক প্রতিবন্ধী মায়ের অসহায় সন্তান।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page আমাদের পেজ লাইক করুন
Raytahost Facebook Sharing Powered By : Raytahost.com